কলেজ পরিচিতি
রাজধানী ঢাকার কোল ঘেঁষে এক মনােরম পরিবেশে শতবর্ষ পূর্বে শিক্ষার উন্নয়ন ও সার্বিক কল্যাণের জন্য কয়েকজন ত্যাগী কালজয়ী মহৎ ব্যক্তির উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয় কলাতিয়া উচ্চ বিদ্যালয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বিদ্যালয়টি শিক্ষাবিস্তারে কেরাণীগঞ্জে অনবদ্য ভূমিকা পালন করে আসছে। এলাকার শিক্ষা সম্প্রসারণে সুদূরপ্রসারী অবদান রাখার প্রয়ােজনে এলাকাবাসীর চাহিদা ও তাদের সক্রিয় সহযােগিতায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির স্বনামধন্য বিদ্যোৎসাহী হিতৈষী ব্যক্তিবর্গ বিদ্যালয়টিকে মাধ্যমিক স্তর থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরে উন্নীত করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৯৩ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয় “কলাতিয়া হাইস্কুল এ্যান্ড কলেজ”। প্রতিষ্ঠানটি উচ্চমাধ্যমিক শ্রেণি পর্যন্ত একটি সফল এবং সমৃদ্ধ প্রতিষ্ঠান হিসেবে আত্মপ্রকাশের পর এলাকাবাসীর চাহিদা ও উচ্চ শিক্ষা সম্প্রসারণের প্রয়ােজনে ১৯৯৮-৯৯ শািবর্ষ থেকে “কলাতিয়া কলেজ” নামকরণ করে নিজস্ব জমিভবনসহ স্বতন্ত্র অবকাঠামােতে মনােরম শিক্ষা পরিবেশে স্নাতক শ্রেণি চালু করা হয়।

ইতােমধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর অধিভূক্তি ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বীকৃতি লাভ করেছে। এ কলেজে উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা এবং স্নাতক পর্যায়ে বি.এ, বি.এসএস ও বি.বিএস শাখায় শিক্ষা গ্রহণের সুযােগ রয়েছে। এছাড়া ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ব্যবস্থপনা’ এবং ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও হিসাববিজ্ঞান বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু করা হয়েছে অতপর ‘বাংলা, ইংরেজি, অর্থনীতি ও সমাজকর্ম বিষয়ে অনার্স কোর্স প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী শিক্ষাবর্ষে মাষ্টার্স কোর্স চালু করা হবে বলে আশা করছি। কালের বিবর্তনে এই বিদ্যাপীঠে শিক্ষা লাভ করে আজ অনেকেই দেশে ও বিদেশে সরকারি, বেসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বড় বড় পদে অধিষ্ঠিত আছেন।

সুশিক্ষা লাভ করার জন্য কঠোর পরিশ্রম, অধ্যবসায় ও একনিষ্ঠ সাধনার প্রয়ােজন। এ লক্ষ্যেই অভিজ্ঞ ও সুযােগ্য শিক্ষকমন্ডলী দ্বারা পরিচালিত এ প্রতিষ্ঠানে শিক্ষাবাের্ড ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক নির্ধারিত নিয়মাবলী এবং পাঠ্যক্রম অনুসরণের পাশাপাশি সহপাঠ কার্যক্রমের আলােকে সুশৃঙ্খলভাবে ছাত্র/ছাত্রীদের আধুনিক। প্রযুক্তির মাধ্যমে শিক্ষাদান, তৎসহ তাদের চারিত্রিক, মানসিক ও নৈতিক বিকাশে প্রতিষ্ঠানটি কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষাঙ্গনের সামগ্রিক পরিবেশ, শিক্ষা ব্যবসা অন্যান্য সুযােগ সুবিধা একজন বিদ্যার্থীকে এ প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নের ব্যাপারে যথেষ্ঠ উৎসাহিত করবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

Google Map Location